রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ১১:১২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
কুষ্টিয়া খোকসায় ৫৮ টি মন্দিরে আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খানের শাড়ি বিতরন নড়াইলে অষ্টমী ও কুমারী পূজাঁ অনুষ্ঠিত। নড়াইলে অবসরপ্রাপ্ত হিন্দু কলেজে শিক্ষক হত্যার ঘটনায় কেয়ারটেকার সহ ৪ জনকে আটক কালিয়া উপজেলা ছাত্রলীগ ও পৌরসভা ছাত্রলীগের নবগঠিত কমিটির শুভেচ্ছা বিনিময় বিএনপির এখন এতই দন্যদশা যে, তাদের সাথে কেউ মেয়ের বিয়েও দিতে চাচ্ছে নাঃ কুষ্টিয়ায় মাহাবুব উল আলম হানিফ নিরাপদ সড়ক আন্দোলন এর কমিটি অনুমোদন। লালমনিরহাটে দাদন ব্যবসায়ীর ফাঁদ থেকে বাঁচার আকুতি মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের শহিদুলের পরিবারের কাছে জিম্মি কুষ্টিয়া আলামপুর বাজার পাড়ার বাসিন্দারা নড়াইলের বিভিন্ন পূজা মণ্ডপ পরিদর্শন ডিসি-এসপি বেরিয়ে আসছে থলের বেড়াল : সার্ভেয়ার মান্নানের অবৈধ টাকার পাহাড় : দুদকের ভূমিকা নিরব!
ঘোষণা:

কুষ্টিয়া ঝাউদিয়ার লম্পট আব্দুস সালাম ২৪ ঘন্টা পর মা ও মেয়ের হাতে জুতাপেটা খেয়ে মুক্তি পেল-

কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি,সময়ের পথঃ-

কুষ্টিয়া ইবি থানার ঝাউদিয়া কালিতলা লালটু মন্ডলের মন্ডল বাড়ির ছেলে চরিত্রহীন লম্পট আব্দুস সালাম মেয়েলি ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রায় ২৪ ঘন্টা মেয়ের পরিবার আটকে রাখে, অবশেষে স্থানীয় আওমীলীগ নেতার সুপারিশের মাধ্যমে মা ও মেয়ের জুতার বাড়ি খেয়ে ছাড়া পায়।
চরিত্রহীন লম্পট আব্দুস সালামের ফেসবুক টাইমলাইন থেকে পাওয়া তথ্যমতে দেখা গেছে তিনি অনেক গুণে গুণান্বিত একটি ছেলে। এখন সকলের মনে প্রশ্ন জাগতে পারে কেন মা ও মেয়ের হাতে জুতাপেটা খেলেন। এই আব্দুস সালাম তিনি নিজেকে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে কুষ্টিয়া সদর উপজেলার বালিয়াপাড়া গ্রামের একটি অসহায় পিতৃহীন এতিম মেয়ের উপর কুনজর পড়ে। তার পরিপেক্ষিতে দীর্ঘ কয়েক মাস ধরে ওই মেয়েটির সঙ্গে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে প্রেমের নাটক চালিয়ে গেছেন, অবশেষে গত রবিবার দীর্ঘ ৮ ঘণ্টা তার সাথে সময় কাটানোর পর রাত ৯ ঘটিকার সময় মোটরসাইকেল যোগে মেয়েটিকে বাড়িতে পৌঁছে দিতে গেলে বাড়ির লোকজন তাকে আটকে ফেলে।
এভাবে লম্পট আব্দুল সালাম কে প্রায় ২৪ ঘন্টা ওই মেয়ের বাড়িতে আটকে রেখে তার পরিবারকে খবর দিলে পরদিন বিকেলে তারা এসে লম্পট আব্দুস সালাম কে নিয়ে যায়। তার বিষয়ে ঝাউদিয়া এলাকায় একাধিক ব্যক্তির তার সম্পর্কে খোঁজ নিতে গেলে বেরিয়ে আসে তার বিরুদ্ধে অনেক মেইলি ঘটনার বিবরণ, প্রকৃতপক্ষে আব্দুস সালাম একজন লম্পট চরিত্রহীন ছেলে বলে প্রমাণ করে দেন এলাকাবাসী।
এ বিষয়ে ঝাউদিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ এর সাধারন সম্পাদক ঠান্টুর মুঠোফোনে কথা হলে তিনি বলেন, আব্দুস সালাম আমার ভাতিজা আমি ওখানে যাই নাই, তবে প্রস্তাবিত কাঞ্চনপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সেকেন্দার আলীর সাথে যোগাযোগ করে ভাতিজাকে ছেড়ে আনা হয়। বিনিময়ে ওই পরিবারকে নগদ ৫০ হাজার টাকা প্রদান করা হয়েছে বলে প্রতিবেদককে জানান।
অর্থের বিষয়ে ভুক্তভোগী গরীব ও অসহায় মেয়েটির মায়ের সঙ্গে সরাসরি কথা বললে, তিনি বলেন আমরা কোনো অর্থ পায় নাই। সেকেন্দার এসে লম্পট আব্দুস সালামকে দুটো কিল ঘুষি মেরে তাকে নিয়ে চলে যায়।
অন্যদিকে সভাপতি সেকেন্দার আলীর মুঠোফোনে এ বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি অর্থ লেনদেনের বিষয়টি সম্পূর্ণ অস্বীকার করেন এবং বলেন এ বিষয়ে আমি কিছু জানি না এবং আমি ওখানে যাই নাই।
লম্পট আব্দুস সালামের ফেসবুক টাইমলাইন থেকে প্রাপ্ত তথ্যমতে তার কাজের ধরন বর্ণনা করা হলো-তিনি এলাকার বড় ভাই, আমার পেশা মাস্তানি করা, নিজের এলাকার ছোট ভাইদের শেল্টার দেওয়া, নিজের পড়ার টাইম নাই নিজের এলাকার পোলাপাইনদের পিটাইয়া মানুষ…,, গর্জন দিব সিংহের মতো ছিনিয়ে আনবো বাঘের মতো হ্যাঁ এটাই আমি, বাপের হোটেলে খাই আর মায়ের কোলে ঘুমাই, মেয়েদের পেছনে ঘুরি না, আম্মু বলেছে মেয়েদের পেছনে কখনো ঘুরবিনা তাই আমি মেয়েদের পেছনে…, পরিবারের বড় সন্তান হাওয়াই সব সময় একটু ব্যস্ত থাকি মেয়েদের পেছনে ঘোরাটা.., ঝাউদিয়া টাইগার ক্লাবের সভাপতি ও প্রোগ্রামিং, আব্বা কইছে ফেসবুকে ফেমাস হইতে না পারলে বাড়ি থেকে বের…., মডারেটর: প্রাণের কুষ্টিয়া, কেউ অতিরিক্ত ভাব নিবেননা ভাব মারা পোলা মাইয়াদের আমি দেখতে…, এভাবে এই ভুয়া সাংবাদিক তার টাইমলাইনে বিভিন্ন অনলাইন পত্রিকার নাম ব্যবহার করে বিভিন্ন জায়গায় চাঁদাবাজিসহ মেয়েলি কর্মকাণ্ড করে বেরিয়েছে যা ঐ সকল পত্র-পত্রিকা মান সম্মান ক্ষুন্ন হয়েছে। এ ধরনের একাধিক তথ্য টাইমলাইনে প্রকাশ করা আছে, এজন্যই বলেছি এই ছেলেটি অনেক গুণে গুণান্বিত একটি ছেলে।
ভুয়া সাংবাদিক পরিচয়দানকারী এই লম্পট ও চরিত্রহীন আব্দুস সালাম অতি অল্প বয়সে একাধিক মেয়ের জীবন নষ্ট করেছে বলে তথ্য পাওয়া গেছে। মূলত সে একজন এইচএসসি পরীক্ষার্থী এই বয়সে সে তার চাচা ঠান্টুর ক্ষমতার বলে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার করে চলেছে। এ বিষয়ে লম্পট চরিত্রহীন আব্দুস সালামের বিরুদ্ধে ঝাউদিয়া বাসি এমনিতেই ফুঁসে উঠেছেন। সেই সাথে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের প্রতি তার কুকর্মের বিষয়টি নজরদারিতে রাখার জন্য অনুরোধ জানান।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেসবুকে আমাদের অনুসরণ করুন