Sunday, November 11 2019
শিরোনাম
Home / জাতীয় / ছোট্ট সোনামনির ভবিষ্যৎ নষ্ট করে মা-বাবা।
ভবিষৎ

ছোট্ট সোনামনির ভবিষ্যৎ নষ্ট করে মা-বাবা।

মোঃ রফিকুল ইসলাম ,(সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মী) :  সন্তানের ভবিষ্যৎ নষ্ট করে মা-বাবা। আমাদের ভার্চুয়াল এই পৃথিবীতে আপনার সন্তানের আবদার ভুড়ি ভুড়ি হতে পারে, আপনার পকেটে পয়সা আছে বলে কি আপনি সন্তানের আবদার টুকু মিটাবেন? যদি মিঠান তাহলে আপনি ধ্বংস করবেন সন্তানের ভবিশ্যদ। ভার্চুয়াল এই পৃথিবীতে সে আসলে অনেক কিছুর সাথে পরিচিত হয়ে গেছে। যে বিষয়গুলো আপনি আমি ওই বয়সে চিনতাম না জানতাম না পরিচিতি ছিলনা বিষয়গুলোর সাথে আমাদের। অধিক পরিচিতির কারণে এখন তার আবদার টুকু বেড়ে গেছে।তাই বলে কি আমরা সব আবদার টুকু পূরণ করব তাদের? আমাদের প্রথমে দেখতে হবে তার আবদার টুকু কি?তার আবদার টুকু যদি শিক্ষণীয় কোন বিষয় হয়, তাহলে কোন ক্ষতি নেই বা আপত্তি নেই। এমন কোনো কারণ যেন না হয় সমাজে আপনি আমি আমরা কেউ মুখ দেখাতে পারবো না। আপনাদের বুঝার জন্য বুঝতে যেন সহজ হয়।

 কয়দিন আগের এক সন্তানের বাবার নিকট আবদার টুকু তুলে ধরলাম। সন্তান আবদার করল, তার পাঁচ হাজার টাকা লাগবে। বাবা তো টাকা দিবে না কিন্তু সন্তান অনেক কান্নাকাটি করে মাকে ম্যানেজ করে ফেলল। হাজার হলেও তো মা সন্তানের আবদার মেটাতে গিয়ে বাবাকে অনেক করে বলে ৫০০০ টাকা নিয়ে দিল। সে সন্তান অল্প বয়সে এসে ৫০০০ টাকা দিয়ে গ্যাং কালচারের সাথে মিশে গেল। ওই পাঁচ হাজার টাকা দিয়ে সে তার খারাপ বন্ধুদের সাথে মিশে, চাকু এবং মারামারি করার জন্য কিছু সরঞ্জাম কিনে নিল। যে জিনিসটি মা-বাবা একদম বুঝতেই পারেনি। মা-বাবার বুঝতে আর বেশি সময় লাগেনি। একদিন ছেলে গ্যাং কালচারের সদস্যদের সাথে চট্টগ্রাম কোতয়ালী থানাই গ্রেপ্তার হয়ে গেল। থানা থেকে ফোন আসলো ছেলের জন্য। মা বাবা তো বিশ্বাসই করতে পারতেছে না! আমার ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র কেন গ্রেফতার হবে?

সুতরাং আমরা মা-বাবাদের এই সেই ছোট্ট শিশুটির দিকে এখন থেকে নজর দিতে হবে। সে বিকেলবেলা খেলতে গেলে কার সাথে মিশতেছে। সে কেমন পরিবেশে মিশতেছে। তার বন্ধুদের বাবা মা কি করে? এই বিষয়গুলো আমাদের বেশি করে নজর দিতে হবে। আমার ছোট্ট শিশুটির আবদার মিটাতে গিয়ে এমন কোনো চুল কাটিং দেব না যে চুল কাটিং তার ভিতরে একটা অহমিকা চলে আসবে ছোট্ট শিশুটি আবদার করবে পশ্চিমা কাটিংয়ের চুল কাটতে তার উপর আমরা কোন জোর প্রয়োগ করব না। ওরা শিশু ওদের অনেক আবদার থাকতেই পারে। তাই বলে ওদের সাথে জোর করা চলবে না। ওদেরকে বুঝিয়ে সামলাতে হবে। আপনার আমার ছোট্ট বেলার শৈশব বেলা কেমন কেটেছে ওদেরকে বুঝাতে হবে।

 অবসর সময় আপনি আমি কি করতাম কিভাবে আমাদের দিন কাট তো এই বিষয়গুলো ওদেরকে শেয়ার করতে হবে। বড়দের সম্মান এবং ক্লাসের শিক্ষকদের সম্মান করতে হবে এ বিষয়ে গুলি ছেলেমেয়েদেরকে শিক্ষা দিতে হবে। ইদানিং একটা বিষয় খুব আমাদের নজরে পড়তেছে। পাড়ার কোন মুরুব্বী বা সিনিয়ররা সন্তানের কোন দোষ দেখলে শাসন করলে সন্তান যখন ঘরে এসে বলে আমরা ক্ষেপে গিয়ে যায়। সন্তানের সামনে ক্ষেপে গিয়ে ওই মুরব্বিকে আমরা জিজ্ঞেস করি কেন আপনি আমার ছেলেকে বা আমার সন্তানকে শাসন করেছেন? এই জিনিসটা একটি সন্তানের বাবা মার মারাত্মক ভুল কাজ। এ কাজটি কখনো সন্তানের সামনে করা যাবে না। হ্যাঁ আপনি অবশ্যই খবর নেবেন আপনার সন্তান কি দোষ করেছিল? তবে সন্তানের সামনে না। সন্তান যেন বুঝতে না পারে বিষয়টি।

About somoyerpoth

Check Also

পুলিশের এডিশনাল এসপি কর্তৃক বাদলের শ্রদ্ধানুষ্ঠানে ইউএনও লাঞ্চিত

 সিনিয়র রিপোর্টার আবদুল মতিন চৌধুরী (রিপন) :  সাংসদ মঈনুদ্দিন খান বাদলের বোয়ালখালী জানাজা পূর্ব শ্রদ্ধানুষ্ঠানে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *