সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৬:১৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
রূপসী পাড়ায় হত-দরিদ্র ও কর্মহীন পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণ- কুষ্টিয়ায় দৌলতপুরে ভ্রাম্যমান আদালতে জরিমানা করার পরও চালিয়ে যাচ্ছে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন- কুষ্টিয়া এলজিইডি’র নির্বাহী প্রকৌশলী কামরুজ্জামানের বিরুদ্ধে অবৈধ অর্থ উপার্জনের অভিযোগ- নওগাঁ রানীনগরে রেলওয়ে জায়গার দোকান ঘর উচ্ছেদে প্রায় ১৬ কোটি টাকার ক্ষতি পথে বসেছে ২৮৪ পরিবার- কুড়িগ্রামে মহিলা পরিষদের নারী ধর্ষণ ও হত্যার প্রতিবাদে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন- কালিয়ায় বালু ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা- দশমীর চিকিৎসায় আবারো আর্থিক সহায়তা দিলেন লৌহ মানব মোহাম্মদ আলী চৌধুরী- ঢাকায় শুভ হত্যার রহস্যের সুষ্ঠু তদন্ত দাবি কালীগঞ্জে মানববন্ধন- কৃষি বিল নিয়ে মানুষকে ভুল বোঝাচ্ছেন বিরোধীরা-বিজেপি নেতা জয় প্রকাশ মজুমদার কালীগঞ্জে সরকারি চাকরি দেওয়ার নামে তপন সাধুর প্রতারণা! কুষ্টিয়ার দাদা রাইস ব্রান্ডের নামে বরিশাল বাজারে যাচ্ছে নিন্মমানের চাল-
ঘোষণা:

নওগাঁর মহাদেবপুরে বেড়া দিয়ে অবরুদ্ধ করে রেখেছে একটি পরিবার-

হাবিব স্টাফ রিপোর্টার নওগাঁ,সময়ের পথঃ-

নওগাঁ জেলার মহাদেবপুর উপজেলার বেলঘরিয়া গ্রামের সুবল কর্মকারের বাড়ীর সকল দিকে বেড়া দিয়ে গৃহবন্দী করে রেখেছে একটি প্রভাবশালী পরিবার। চলাচলের রাস্তায় বাশেঁর বেঁড়া দেওয়ায় ২দিন যাবত অবরুদ্ধ একটি পরিবার। ঘটনাটি ঘটেছে,মহাদেবপুর উপজেলার ১০নং ভীমপুর ইউপির বেলঘড়িয়া গ্রামে।
স্থানীয়রা জানান, মহাদেবপুর উপজেলার ১০নং ভীমপুর ইউপির বেলঘড়িয়া গ্রামের সুন্তষ ও সুজিত নামের দুই ব্যাক্তির কাছে থেকে মৃত মহাদেব কর্মকার এর ছেলে সুবল কর্মকার বসতভিটা ক্রয় করে তিন বছর যাবত বসবাস করে আসছেন। জমাজমির জের ধরে হঠাৎ রবিবার (৫ জুলাই) মৃত সতীশ মন্ডলের ছেলে নিতেশ মন্ডল জোরপূর্বক চলাচলার রাস্তায় বাঁশের বেড়া দিয়ে অবরুদ্ধ করে সুবল কর্মকারের পরিবারকে। সুবল কর্মকার বলেন,জমি ক্রয় করে তিন বছর যাবত বসতবাড়ি তৈরী করে বসবাস করে আসছি।চলাচলের রাস্তা বাড়ির সামনে না থাকায় বাড়ির পিছনে চলাচলের রাস্তার জন্য ২ শতাং জমি ক্রয় করেছি। ঐ ক্রয়কৃত রাস্তার উপর দিয়ে এ যাবত চলাচল করে আসছি। হঠাৎ মৃত সতীশ মন্ডলের ছেলে
নিতেশ মন্ডল জোরপূর্বক চলাচলার রাস্তায় বাঁশের বেঁড়া দিয়ে তিনি বলে এই জমির মালিক আমি এই রাস্তা দিয়ে চলাচল বন্ধ।আমি নিতেশ মন্ডলকে জমির কাগজপত্র দেখাতে চাইলে তিনি বলে এই কাগজপত্র দেখেই রাস্তায় বেঁড়া দিয়েছি এবং বিভিন্ন প্রকার হুমকি প্রদান করে চলে যায়। এই রাস্তার বিষয়ে বেশ কয়েকবার গ্রামের মন্ডল মাতব্বর নিয়ে বসে
সমাধান করে দিলেও নিতেশ পরে মানতে রাজী হয় না। ২দিন যাবত এভাবে আমার পরিবার কে বাঁশের বেঁড়া দিয়ে অবরুদ্ধ করে রেখেছে নিতেশ মন্ডল।
বাঁশের বেঁড়া দেওয়ার বিষয়ে নিতেশ মন্ডলের বাড়িতে সাক্ষাত করতে গেলে নিতেশ মন্ডলকে বাড়িতে না পাওয়া সাক্ষাত করা সম্ভাব হয়নি। তবে তার
স্ত্রী বলেন আমাদের জমিতে আমরা বেঁড়া দিয়েছি বলে জানান। এই বিষয়ে মহাদেবপুর থানার অফিসার ইনর্চাজ(ওসি) মোঃ নজরুল ইসলাম জুয়েল বলেন,এ বিষয়ে এখনো কেউ অভিযোগ করেনি তাবে
অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেসবুকে আমাদের অনুসরণ করুন