বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ০৭:৩৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
জুয়াড় স্পট দুমড়ে মুচড়ে দিয়েছে সিএমপি!‌‌‌‌! ফুলবাড়ীতে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের ক্ষতিপূরণ বাবদ নগদ অর্থ প্রদান যশোর উন্নয়ন ও বিভাগ বাস্তবায়ন পরিষদ তাদের ১১ দফা বাস্তবায়, নড়াইলে অনুষ্ঠিত সংবাদ। লালমনিরহাটের কালীগঞ্জে মৃত ব্যক্তির নামে চেক নিয়ে ১০ হাজার টাকা নজরানা নিলেন যুবলীগ নেতা কাঞ্চন। মৃত্যুর সাথে লড়াই করে হেরে গেলেন নড়াইলের শাওন। নড়াইলে শিশু পরিবারের আট এতিমকে সংশোধনের জন্য দুই মাসের ছুটি সার্ভেয়ার মান্নানের তেলেছমতি কারবার : টাকা দিলে বাঁকা : না দিলে ফাঁকা রামগড়ে মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের ১০ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপিত পীর বজলুর রহমান ( বুজু) ফকিরের মৃত্যু । কুষ্টিয়ায় ইউপি চেয়ারম্যান কেরামত আলী বিশ্বাসসহ ১১জনের বিরুদ্ধে জমি জালিয়াতির অভিযোগ
ঘোষণা:

ফুলবাড়ী থানা পুলিশের তৎপরতায় বাবু হত্যার এক আসামি গ্রেফতার-

আল আমিন বিন আমজাদ ফুলবাড়ী প্রতিনিধি,সময়ের পথঃ-

দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার ৪নং বেদদিঘী ইউনিয়নের মাদিলাহাট সৈয়দপুর দক্ষিণপাড়া গ্রামের ভ্যান চালক বাবু হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত জুয়েল রানা(২০) নামের এক যুবককে আটক করেছে ফুলবাড়ী থানা পুলিশ। তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার করে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ১২ অক্টোবর সোমবার রাত ২ টার দিকে ঘাতক জুয়েল রানাকে কুশলপুর খেলার মাঠ থেকে আটক করা হয়েছে।আটক জুয়েল রানা এক‌ই উপজেলার ৬নং দৌলতপুর ইউনিয়নের বলিভদ্রপুর গ্রামের সামসুল আলমের ছেলে।মামলা সূত্রে জানা যায়,গত ৮ অক্টোবর বৃহস্পতিবার নিজবাড়ি থেকে ব্যাটারি চালিত ভ্যান নিয়ে বের হয় নিহত বাবু।ওইদিন গভীর রাত হলেও নিজ বাড়িতে না ফেরায় তাকে খুঁজাখুঁজি শুরু করে পরিবারের লোকজন রাতে তাকে খুঁজে না পেয়ে পরিবারের লোকজন ভাবেন হয়তো দূরে কোথাও ভাড়া নিয়ে গেছে।পরের দিন ৯ অক্টোবর শুক্রবার পাশের গ্রাম বড়নগর ও বলিভদ্রপুরের মাঝামাঝি কলাবাগানের পাশে ধান ক্ষেতে বাবুর মরদেহের পড়ে থাকতে দেখেন ঐ এলাকার এক কৃষক।পরে তার পরিবারের লোকজনকে খবর দেয় এলাকাবাসী,সেখানে ছুটে গিয়ে মরদেহটি শনাক্ত করেন তার পরিবারের লোকজন।ওইদিনই নিহত বাবুর চাচা আব্দুর রউফ মণ্ডল বাদি হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামী করে ফুলবাড়ী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন,যার মামলা নং- ৮। তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার করে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ১২ অক্টোবর রাত ২ টার দিকে হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত জুয়েল রানাকে আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ।১৩ অক্টোবর মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬ টার দিকে ম্যাজিস্ট্রেট রাশেদুল আমিনের কাছে আটক জুয়েল রানা হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে জবানবন্দি দেন। জবানবন্দিতে হত্যাকাণ্ডের সাথে আরো একজন জড়ীত থাকার কথা স্বীকার করে জুয়েল রানা।পরে তাকে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন ম্যাজিস্ট্রেট।স্বীকারোক্তিতে জুয়েল রানা বলেন,তারা নিয়মিত নেশা করতো,নেশার টাকা জোগারে জন্য ছোটখাটো চুরি করতো তারা।মোটা অঙ্কের নেশার টাকার জন্য পরিকল্পনা করেন জুয়েল ও অপর হত্যাকারী।পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী গত ৮ অক্টোবর রাত ৮টায় ভ্যান চালক বাবুকে বিরামপুর উপজেলায় যাওয়া কথা বলে তার ভ্যান ভাড়া করেন জুয়েল। বিরামপুর যাওয়ার পথে বড়নগর বলিভদ্রপুর ভাটপাড়ি এলাকায় রাস্তার পাশের জামিলের কলার বাগানের কাছে এলে ভ্যানটি থামিয়ে বাবুকে নেশা করার প্রস্তাব দেয় জুয়েল।সেখানে পরিকল্পনা অনুযায়ী আগে থেকেই উপস্থিত ছিলেন অপর হত্যাকারী। জুয়েল কলাবাগানের ভিতরে বাবুকে নিয়ে যায় এবং সেখানে বসে অপর হত্যাকারীসহ বাবু ও জুয়েল আড্ডা দেয় এবং মাদক সেবন করেন তারা। তবে বাবু মাদক সেবন করেন’নি বলেও স্বীকারোক্তি দিয়েছে জুয়েল।আড্ডার এক পর্যায়ে বাবু প্রস্রাব করেতে গেলে পেছন থেকে তার মাথায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে
কোপায় জুয়েলের সাথে থাকা অপর হত্যাকারী।পরে গলা কেটে তার মৃত্যু নিশ্চিত করে হত্যাকারীরা। রক্তাক্ত অবস্থায় বাবুকে দেখে জুয়েল দৌঁড়ে ভ্যানে গিয়ে বসে। বাবুর মৃত্যু নিশ্চিত করে অপর হত্যাকারী ভ্যানের কাছে আসলে তারা দুজনে বাবুর ভ্যানটি নিয়ে সেখান থেকে বিরামপুর উপজেলায় পালিয়ে যান। পরের দিন ভ্যানটি বিক্রির চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে একটি গ্যারেজে ভ্যানটি রেখে পালিয়ে যান জুয়েলসহ অপর হত্যাকারী।এবিষয়ে ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ ফখরুল ইসলাম জানান,তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ভ্যান চালক বাবু হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত জুয়েল রানাকে আটক করা হয়েছে। জুয়েল রানা ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে হাত্যাকান্ডের সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছে।তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত অপর আসামীকে আটকের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেসবুকে আমাদের অনুসরণ করুন