বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ১২:০৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
ফুলবাড়ীতে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের ক্ষতিপূরণ বাবদ নগদ অর্থ প্রদান যশোর উন্নয়ন ও বিভাগ বাস্তবায়ন পরিষদ তাদের ১১ দফা বাস্তবায়, নড়াইলে অনুষ্ঠিত সংবাদ। লালমনিরহাটের কালীগঞ্জে মৃত ব্যক্তির নামে চেক নিয়ে ১০ হাজার টাকা নজরানা নিলেন যুবলীগ নেতা কাঞ্চন। মৃত্যুর সাথে লড়াই করে হেরে গেলেন নড়াইলের শাওন। নড়াইলে শিশু পরিবারের আট এতিমকে সংশোধনের জন্য দুই মাসের ছুটি সার্ভেয়ার মান্নানের তেলেছমতি কারবার : টাকা দিলে বাঁকা : না দিলে ফাঁকা রামগড়ে মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের ১০ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপিত পীর বজলুর রহমান ( বুজু) ফকিরের মৃত্যু । কুষ্টিয়ায় ইউপি চেয়ারম্যান কেরামত আলী বিশ্বাসসহ ১১জনের বিরুদ্ধে জমি জালিয়াতির অভিযোগ নড়াইলের কালনা সেতুতে পূরণ হতে চলেছে ১০ জেলাবাসীর স্বপ্ন।
ঘোষণা:

মহানগর ছাত্রদলের কমিটি গঠনে বিবাহিতদের রাখার দাবিতে শাহাদাত-বক্কর অবরুদ্ধ

আব্দুল করিম চট্টগ্রাম বিভাগীয় ব্যুরো প্রধান,সময়ের পথঃ-

চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রদলের কমিটি গঠন ও কমিটিতে বিবাহিতদের রাখার দাবিতে নগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন, সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর, সিনিয়র সহ সভাপতি আবু সুফিয়ান, নগর ছাত্রদলের সভাপতি গাজী সিরাজ উল্লাহকে প্রায় দেড় ঘন্টা অবরুদ্ধ করে রাখার ঘটনা ঘটেছে।
বুধবার (১৫ জুলাই) নগরের নাসিমন ভবন দলীয় কার্যালয়ে নগর বিএনপির উদ্যোগে এক অনুষ্ঠানে এসে বের হওয়ার পথে ছাত্রদল নেতাদের হাতে অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন তারা।জানা যায়, চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির উদ্যোগে করোনা রোগী ফ্রি অক্সিজেন ও মেডিসিন সেবা কার্যক্রমের উদ্বোধন করার জন্য নগর বিএনপি ও ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা বুধবার দুপুর এগারোটার দিকে নাসিমন ভবন দলীয় কার্যলয়ে আসেন।অনুষ্ঠান শেষ করে বের হওয়ার সময় বিবাহিত ছাত্রনেতা ও অবিবাহিতদের সমন্বয়ে স্বল্প সময়ের কমিটির দাবিতে বিএনপির নেতাদের অবরুদ্ধ করে রাখেন বিবাহিত ছাত্রনেতারা। প্রায় দেড় ঘন্টাব্যাপী দলীয় কার্যালয়ের গেইটের সামনে অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন নগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন, সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর, সিনিয়র সহসভাপতি আবু সুফিয়ান, যুগ্ম সম্পাদক এসকান্দর মির্জা, ইয়াছিন চৌধুরী লিটন, নগর ছাত্রদলের সভাপতি ও নগর বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক গাজী সিরাজ উল্লাহ, বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল ইসলামসহ বিএনপির নেতারা। পরে বিবাহিত-অবিবাহিতদের সমন্বয়ে কমিটি করা হবে এমন আশ্বাস দিয়ে অবরুদ্ধ থেকে মুক্ত হন বিএনপির নেতারা।
এন মোহাম্মদ রিমনের নেতৃত্ব বিবাহিত ছাত্রদল নেতারা কয়েক দিন ধরে নানা কর্মসূচি পালন করে আসছে।জানতে চাইলে নগর ছাত্রদল নেতা এন মোহাম্মদ রিমন  বলেন, ছাত্রদলের কমিটিতে ছাত্রনেতাদের ত্যাগ, মামলা, হামলা, কারানির্যাতন, রাজপথের অভিজ্ঞতা, সাংগঠনিক দক্ষতা সর্বোপরি শিক্ষাগত যোগ্যতাকে অগ্রাধিকার দেওয়া হোক। বিবাহিত-অবিবাহিত শর্তকে সামনে এনে ত্যাগী ছাত্রনেতাদেরকে বলি দেওয়ার পায়তারা চলছে। আমাদের দাবি অতি স্বল্প সময়ের জন্য হলেও নূন্যতম একটি স্বীকৃতির মাধ্যমে রাজপথের ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন করে নগর ছাত্রদলকে সুন্দর কমিটি উপহার দেওয়া হোক।তিনি বলেন, নগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত ভাইসহ সিনিয়র নেতৃবৃন্দ আমাদের আশ্বাস দিয়েছেন, বিবাহিত-অবাবিহতদের সমন্বয়ে কমিটি গঠন করার জন্য কেন্দ্রীয় ছাত্রদল ও কেন্দ্রীয় বিএনপিসহ ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে জানানো হবে। এ দাবির পক্ষে সিনিয়র নেতারা আমাদের সাথে একমত পোষণ করে পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছেন।
জানতে চাইলে নগর ছাত্রদলের সভাপতি গাজী সিরাজ উল্লাহ বলেন, নগর ছাত্রদলের কমিটি বিবাহিত ও অবিবাহিতদের সমন্বয়ে করার দাবিতে বিবাহিত ছাত্রনেতারা আমাদের অবরুদ্ধ রেখেছিল। উত্তর ও দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের কমিটিতে বিবাহিতরা থাকতে পারলে নগরে কেন পারবে না। আমরা বিষয়টি কেন্দ্রীয় নেতাদের জানানোর আশ্বাস দিয়েছি এবং তাদের দাবির সাথে একমত পোষণ করেছি।নগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেনের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেসবুকে আমাদের অনুসরণ করুন