সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০, ০৯:৪৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
ঘোষণা:

মেয়াদ উত্তীর্ণ বণিক সমিতির মাধ্যমে চলছে কুষ্টিয়া হরিনারায়নপুর বাজারে চাঁদাবাজি-

কে এম শাহীন রেজা কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি,সময়ের পথঃ-

মেয়াদ উত্তীর্ণ বণিক সমিতির মাধ্যমে চাঁদাবাজি চলছে কুষ্টিয়া সদর উপজেলার ইবি থানার হরিনারায়নপুর বৃহত্তম বাজারটিতে। উক্ত বাজারে প্রতিদিন কোটি কোটি টাকার ব্যবসা চলে। গত ২০১৭ সালে নির্বাচিত প্রতিনিধিদের মাধ্যমে চলছিল ইবি থানার অন্তর্ভুক্ত বৃহত্তম এই হরিনারায়নপুর বাজার, বর্তমানে এই করোনা মুহূর্তে ঈদের আগে বণিক সমিতি কর্তৃক চালিয়ে যাচ্ছে চাঁদাবাজি। নির্বাচনের পর থেকে তিন বছর মেয়াদী কমিটির মেয়াদ চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে উক্ত বণিক সমিতির মেয়াদ পেরিয়ে গেলেও উক্ত কমিটি অবৈধভাবে বহাল তবিয়তে বাজার নিয়ন্ত্রণ করে যাচ্ছে।
বিশেষ করে করোনা কালীন সময়ে সকাল ১০ টা থেকে সন্ধ্যা সাতটা পর্যন্ত কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসক সময় নির্ধারণ করে দিলেও সরেজমিনে দেখা গেছে হরিনারায়নপুর বাজার চলছে রাত দশটা পর্যন্ত। এর বিনিময়ে উক্ত বণিক সমিতি পবিত্র ঈদ উপলক্ষে ওই সকল দোকানদারদের কাছ থেকে এই অতিরিক্ত সময়ের জন্য প্রতিদিন আদায় করছে লক্ষ লক্ষ টাকা। উক্ত বণিক সমিতি কোন সরকারি অফিস কর্তৃক রেজিস্টার্ড ভুক্ত কোন প্রতিষ্ঠান নন। এটা নিয়ন্ত্রণ করেন পার্শ্ববর্তী তিনটি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানগন।
এ বিষয়ে নাম প্রকাশ শর্তে একাধিক ব্যবসায়ীরা প্রতিবেদককে জানায়, আমরা এই বাজারের মধ্যে সাতশোর ঊর্ধ্বে ব্যবসায়ী আছি। অতিরিক্ত সময় দোকান খোলা রাখার জন্য বণিক সমিতিকে প্রতিদিন মোটা অংকের চাঁদা দেওয়া লাগছে। আর এই চাঁদা উত্তোলন করছে বণিক সমিতির অফিস সহকারি।
অন্যদিকে প্রতিমাসে প্রত্যেক ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ব্যবসা ভেদে ন্যূনতম ৫০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ৬০০ টাকা পর্যন্ত চাঁদা আদায় করার কথা স্বীকার করেন বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম চন্দন। আদায় কৃত অর্থ দিয়ে ৮ জন নাইট গার্ড ও একজন অফিস সহকারীকে বেতন প্রদান করি।
কমিটির মেয়াদ উত্তীর্ণের বিষয়ে বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম চন্দন এর সাথে সরাসরি কথা হলে তিনি বলেন, এই করোনার দুর্যোগ মুহূর্তে সকল উপদেষ্টা মন্ডলীকে লিখিতভাবে কোন জবাব প্রদান করি নাই তবে মৌখিকভাবে আমরা সকল উপদেষ্টাকে বলেছি।
উক্ত বণিক সমিতির সভাপতি নারায়ন চন্দ্র আগরওয়ালা অসুস্থ থাকার কারণে তার সঙ্গে কথা বলা সম্ভব হয় নাই, তবে তার সকল কাজকর্ম দেখভাল করেন সহ-সভাপতি ইখতারুজ্জামান শামীম’। শামীম’এর মুঠোফোনে কথা হলে তিনিও একই কথা বলেন যে, আমরা এই করোনা কালীন সময়ে সকল উপদেষ্টা মন্ডলীকে মৌখিকভাবে বলেছি যে, আমাদের কমিটির মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়েছে কিন্তু লিখিতভাবে কোন উপদেষ্টা মন্ডলীগনকে জানানো হয় নাই।
কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসন কর্তৃক ধার্যকৃত সময় সকাল দশটা থেকে সন্ধ্যা সাতটা পর্যন্ত দোকান পাট খোলা থাকার নোটিশ জারি করেন, কিন্তু ব্যবসায়ী মহলের কাছ থেকে অতিরিক্ত সময় খোলা রাখার জন্য যে অতিরিক্ত চাঁদা আদায় করা হয়, সে বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে তিনি বিষয়টি এড়িয়ে যান।
হরিনারায়নপুর বাজারটি মূলত: হরিনারায়নপুর ইউনিয়ন এর মধ্যে অবস্থিত, যে কারণে উক্ত ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন উক্ত বণিক সমিতির প্রধান উপদেষ্টা, এ বিষয়ে তার সাথে সরাসরি কথা বললে তিনি বলেন, বণিক সমিতির মেয়াদ উত্তীর্ণের কমিটির ১২ জন সদস্যের একজন সদস্যও আমাকে লিখিতভাবে জানানো তো দূরের কথা মৌখিকভাবেও আমাকে তারা বলেন নাই। তবে তিনি এটাও বলেন যে, বিগত পাঁচ ছয় মাস পেরিয়ে গেলেও মেয়াদ উত্তীর্ণের বিষয়টি আমার দপ্তরে প্রেরণ করা উচিত ছিল, কিন্তু উক্ত সমিতির সদস্যরা তা এখনো করেন নাই। যদি তারা লিখিত ভাবে জানাতেন তাহলে আমরা একটি আহ্বায়ক কমিটি গঠন করে দিতাম বলে তিনি প্রতিবেদককে জানান।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেসবুকে আমাদের অনুসরণ করুন