সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০, ০৭:৩০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
কুষ্টিয়ায় নারীর প্রতি সহিংসতা রোধ সেমিনারে এমপি হানিফ ফুলবাড়ীতে করোনা নমুনা সংগ্রহের বুথ ভেঙ্গে চুরমার তদন্ত কমিটি গঠন। দেড়শ বছরেরও বেশী সময় ধরে এক আঙিনায় মসজিদ-মন্দির। এ যেন ধর্মীয় সম্প্রীতির এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। আসল পুলিশের হাতে ৪ ভুয়া পুলিশ আটক ভক্ত হবি তো, বোকা হবি কেন? মাদারীপুরে আড়িয়াল খাঁ’র নদী ভাঙ্গনে ৬টি ঘর,৩শ’মিটার সড়ক ও ইটভটার এক অংশ বিলীন। শারদীয় দৃর্গা পুজার নবমীর দিনে পুজা মন্ডব ছিল জন শুন্য কুষ্টিয়া দৌলতপুর মহিষকুন্ডির মাদক ব্যবসায়ীরা এখন ত্রাস: বাধা দিলেই মারধরসহ প্রাণনাশের হুমকি নওগাঁ দুবলহাটি নুরুলের হোমিও মাদক সেবন করে অন্ধ হয়ে মারা গেছে ১১ জন, অন্ধ হয়ে মৃত্যুর পথোযাত্রী-৪ নওগাঁ দুবলহাটি নুরুলের হোমিও মাদক সেবন করে অন্ধ হয়ে মারা গেছে ১১ জন, অন্ধ হয়ে মৃত্যুর পথোযাত্রী-৪
ঘোষণা:

রামগড়ে স্বামীর হাতে স্ত্রী খুন,ঘাতক স্বামী আটক-

এমদাদ খান রামগড় খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি,সময়ের পথঃ-

খাগড়াছড়ির রামগড়ে স্ত্রীকে ধারালো দা দিয়ে কুপিয়ে ও জবাই করে নৃশংসভাবে হত্যা করেছে পাষন্ড স্বামী ওমর ফারুক(২৫)। মঙ্গলবার(২৮ জুন) দিবাগত রাত ৩টার দিকে ঘটনাটি ঘটেছে। পুলিশ ঘাতক স্বামীকে গ্রফতার করেছে।
পুলিশ জানায় , মঙ্গলবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে স্ত্রী রাশেদা বেগম(২১) বাথরুম থেকে বের হওয়ার সাথে সাথে স্বামী ওমর ফারুক পিছন দিক থেকে ধারালো দা দিয়ে তার ঘাড়ে সজোরে কোপ দেয়। এতে স্ত্রী মাটিতে লুটিয়ে পড়ার পর ঐ দা দিয়ে তাকে জবাই করে হত্যা করে ফারুক। পরে দা’টি ধুয়ে ছাগলের ঘরে লুকিয়ে রাখে সে। পুলিশ জানায়, ওমর ফারুক স্ত্রীকে হত্যার কথা স্বীকার করেছে।
রামগড়ের উত্তর লামকুপাড়ার বাসিন্দা নিহত রাশেদার বাবা আবু সৈয়দ বলেন, প্রায় তিন বছর আগে মধ্যম বলিপাড়ার প্রবাসি দেলোয়ার হোসেনের ছেলে ওমর ফারুকের সাথে রাশেদার বিয়ে হয়। ফারুক স্থানীয় সেনাইপুল বাজারের ফল ব্যবসায়ি। তাদের ২০ মাসের একটি পুত্র শিশু রয়েছে। গত ৬-৭ মাস থেকে সাংসারিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কলহ চলছিল। স্ত্রীকে মারধর করায় কয়েকমাস আগে স্থানীয় ইউপি মেম্বারের উপস্থিতিতে শালিসও হয়। মঙ্গলবার রাতেও স্বামী স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়। তিনি আরও বলেন, কিছুদিন আগে ফারুকের ছোট ভাই করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর রাশেদা স্বামী ও ছেলেকে নিয়ে ২৮ দিনের মত তাদের বাড়িতে ছিল। ১০-১২ দিন আগে রাশেদা স্বামী সন্তানসহ শ্বশুরবাড়িতে ফিরে যায়। অটোরিকশা চালক আবু সৈয়দ তার মেয়ে নৃশংংসভাবে হত্যার জন্য ঘাতক স্বামী ওমর ফারুকের ফাঁসির দাবি জানান।
রামগড় থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মোহাম্মদ সামছুজ্জামান বলেন, খবর পাওয়ার সাথে সাথেই ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করেন। ঘটনাস্থল থেকে হত্যর কাজে ব্যবহৃত দা, রক্তমাখা স্বামীর রক্তমাখা লুঙ্গি ইত্যাদি আলামত জব্দ করা হয়। ওসি আরও বলেন, কৌশল হিসেবে ওমর ফারুককে পুলিশের প্রহরায় হাসপাতালে রাখা হয়। পরে মঙ্গলবার দুপুরে থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদে সে অপকটে হত্যার কথা স্বীকার করেছে। তিনি বলেন, নিহত রাশেদা বেগমের পিতা আবু সৈয়দ বাদি হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেসবুকে আমাদের অনুসরণ করুন