1. admin@somoyerpoth.com : somoyerpoth.com :
শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:৩৫ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
নওগাঁ টিটিসিতে বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতা দেশকে এগিয়ে নিতে সাহায্য করে-খাদ্যমন্ত্রী স্বপ্ন পূরক ব্লাড ডোনেশন এর উদ্যোগে ফ্রি ব্লাড গ্রুপ নির্ণয় ক্যাম্পিং হরিণাকুণ্ডুতে বিভিন্ন মামলার ১১ আসামি গ্রেপ্তার রাজারহাটে জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদকের তিস্তার ভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শন, সিলেট নগরীর বাগবাড়ী নরশিংটিলায় তীব্র পানির সংকট, সংকট নিরসনে নেই কোন পদক্ষেপ সাতক্ষীরায় মোবাইলে এস,এম ,এস দিয়ে ডেকে নিয়ে ছাত্রীকে ধর্ষনের পর হত্যা কুষ্টিয়ায় দুর্বৃত্তের গুলিতে জামাত নেতা মোস্তফার সহযোদ্ধা খুন -আটক -৪ রাস্তাজুড়ে খানাখন্দ, কাদাপানিতে দুর্ভোগ তিন গ্রামের মানুষের সাংবাদিক মহিউদ্দিন শিরু’র ১২তম মৃত্যুবার্ষিকী শনিবার কুষ্টিয়ায় র‍্যাবের অভিযানে পিস্তল,গুলি, জাল টাকা সহ মাদক ব্যবসায়ী আরজু গ্রেফতার

কুড়িগ্রামে নতুন করে ব্রহ্মপুত্রের বেড়েছে পানি, বানভাসিদের দুর্ভোগ

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: বুধবার, ১ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ২৯ বার পড়া হয়েছে

কুড়িগ্রামে নতুন করে ব্রহ্মপুত্রের বেড়েছে পানি,
বানভাসিদের দুর্ভোগ

রুহুল আমিন রুকু, কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধিঃ
উজানের পাহাড়ী ঢলে আর ভারতে কয়েকদিনের টানা বৃষ্টিতে কুড়িগ্রামের ব্রহ্মপুত্র, ধরলা, তিস্তা, দুধকুমারসহ ১৬ টি নদ-নদীর পানি গত ১ সপ্তাহ থেকে ক্রমশ বৃদ্ধি পেয়ে, কুড়িগ্রামের নিচু এলাকায় বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত রয়েছে। ফলে নদী তীরবর্তী নিচু এলাকাগুলোয় বন্যার কবলে পড়ে বিপাকে দিন অতিবাহিত করছেন তীরবর্তীতে বসবাসরত মানুষেরা। নদ-নদীগুলোর অববাহিকার চর ও দ্বীপ চরের প্রায় ৭৫ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে জীবন-যাপন করছে। এসব এলাকার রাস্তা-ঘাট তলিয়ে থাকায় নৌকা হয়ে উঠেছে যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম। কখনো এক নদীর পানি বাড়ছে তো অন্যদিকে আরেকটি নদীর পানি কমছে ,আবার পানি কমা-বাড়ার সাথে দেখা দিয়েছে নদী ভাঙন । এসব এলাকার মানুষের দুর্ভোগ বেড়েছে, খাদ্য সংকট চরমে।
বুধবার (১ সেপ্টেম্বর) কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ড জানায়,সকালে ব্রহ্মপুত্রের পানি বেড়ে চিলমারী পয়েন্টে বিপদসীমার ৪২ সেন্টিমিটার, ধরলার পানি সামান্য কমে সেতু পয়েন্টে বিপদসীমার ১৩ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।
এদিকে পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় পানির নিচে তলিয়ে আছে ধানসহ বিভিন্ন সবজির ক্ষেত। দীর্ঘদিন পানির নীচে থাকায় বেশিরভাগ ফসল নষ্ট হয়ে গেছে। কৃষি ক্ষেত্রে ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখিন হয়েছেন চরের কৃষকরা।
কুড়িগ্রাম সদর ভোগডাঙ্গা ইউনিয়নের বড়াই বাড়ি গ্রামের মাহাবুব বলেন,”৩ বিঘা জমিতে আমন ধান রোপণ করছি। ২-৩ দিন নদীতে পানি বৃদ্ধির ফলে আমার আমন খেত তলিয়ে গেছে। পানি যদি স্থায়ী থাকে তাহলে তো আমন আবাদ নষ্ট হয়ে যাবে। অন্যদিকে করোনার কারণে সংসারের অবস্থা খারাপ তার মধ্যে যদি আবার আমন খেত নষ্ট হয়ে যায় কি হবে আমাদের।” কুড়িগ্রাম কৃষি অফিসের তথ্যমতে,বন্যার পানিতে তলিয়ে আছে ১৬ হাজার ৪’শ ৭ হেক্টর জমির রোপা আমন ও ২’শ ৭০ হেক্টর জমির সবজি ক্ষেত।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত