1. admin@somoyerpoth.com : somoyerpoth.com :
রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১০:৩৮ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
সিলেট বিভাগের ৭৭ টি সহ সারাদেশে ৩য় ধাপের ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী চুড়ান্ত নানা আয়োজনে পালিত হলো ১৫ ফিল্ড রেজিমেন্ট আর্টিলারীর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। মঙ্গোলিয়ার উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের কাছে দারুন জনপ্রিয় অনলাইন শিক্ষা র‍্যাবের হাতে মাদকসহ উলিপুরের সমাজসেবা কর্মকর্তাসহ গ্রেফতার-২ কুড়িগ্রামে মৎস্য বিভাগের মা ইলিশ সংরক্ষণে অভিযান। সিলেটের বর্ষীয়ান আওয়ামী লীগ নেতা আবু নছরের মৃত্যুতে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর শোক ছাতক পৌরসভার নামে টোল আদায় বন্ধে ট্রাক, কাভার্ডভ্যান মালিক ও শ্রমিক সমিতির সভা বড়লেখায় ভোটকেন্দ্র পুনর্বহাল ও নতুন ভোটকেন্দ্র অন্তর্ভুক্ত না করার দাবিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা সিলেটে সংবাদকর্মীকে দফায় দফায় মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর অপচেষ্টা : অভিযোগ সিলেটে অর্থের অভাবে আটক পড়ে আছে ৪২ হাজার ভবনের পরিক্ষা

চুয়াডাঙ্গার পুলিশ সুপার তত্ত্বাবধানে সুমাইয়া আক্তার ফিরে পেল তার সুখের সংসার।

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ৫ অক্টোবর, ২০২১
  • ৪৬ বার পড়া হয়েছে

চুয়াডাঙ্গার পুলিশ সুপার তত্ত্বাবধানে সুমাইয়া আক্তার ফিরে পেল তার সুখের সংসার।
জাহাঙ্গীর আলম মানিক চুয়াডাঙ্গা দামুড়হুদা

মোছাঃ সুমাইয়া আক্তার (২২), পিতা-মো: বিল্লাল হোসেন, সাং-সাতগাড়ি হিজরাপাড়া, থানা ও জেলা-চুয়াডাঙ্গা এর সাথে মোঃ সুমন আলী(২৪), পিতা-মো: তাইজেল আলী, সাং-উজিরপুর, থানা-দামুড়হুদা, জেলা-চুয়াডাঙ্গার অনুমান ০৫ (পাঁচ) বছর পূর্বে ইসলামী শরিয়া মোতাবেক বিবাহ হয়। দাম্পত্য জীবনে তাদের ১টি তাসফিয়া আক্তার মিম্মা নামে ফুটফুটে কন্যা সন্তান রয়েছে। বিবাহের পর থেকে মোঃ সুমন আলী ও তার পরিবারের লোকজন যৌতুকের দাবীতে সুমাইয়া আক্তারকে শারীরিক ও মানষিক অত্যাচার করতে থাকে। সুমাইয়ার পিতা-মাতা বিভিন্ন সময়ে নগদ টাকা এবং আসবাবপত্র মেয়ের সংসারের সুখের কথা চিন্তা করে পাঠায়। তবুও অত্যাচার কমে না শুধুমাত্র সন্তানের মুখের দিকে তাকিয়ে শতকষ্ট সহ্য করে সুমাইয়া সংসার করছিলেন।

একপর্যায়ের সুমাইয়া তার স্বামী ও তার পরিবারের নির্মম অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে তার শিশু কন্যাকে নিয়ে সাতগাড়ি হিজরা পাড়ায় ভাড়া বাসায় উঠে এবং সন্তানকে নিয়ে মানবিক পুলিশ সুপার, চুয়াডাঙ্গার নিকট একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

পুলিশ সুপার, চুয়াডাঙ্গা মহোদয় উক্ত অভিযোগটি তার কার্যালয়ে অবস্থিত “উইমেন সাপোর্ট সেন্টার” এর মাধ্যমে আজ
০৫. অক্টোবর উভয় পক্ষকে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে হাজির করেন। উইমেন সাপোর্ট সেন্টারের মাধ্যমে মানবিক পুলিশ সুপার, চুয়াডাঙ্গা জনাব মোঃ জাহিদুল ইসলাম এর প্রত্যক্ষ মধ্যস্থতায় মো: সুমন আলী সুমাইয়াকে নিয়ে সব বিবাদ ভুলে সংসার করতে সম্মত হয়। পুলিশ সুপার, চুয়াডাঙ্গার প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধায়নে মোছাঃ সুমাইয়া আক্তার ফিরে পেল তার সুখের সংসার ও তাসফিয়া আক্তার মিম্মা পেলো পিতৃস্নেহ।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন

আরো লেখাসমূহ

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত