1. admin@somoyerpoth.com : somoyerpoth.com :
রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১০:২৩ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
সিলেট বিভাগের ৭৭ টি সহ সারাদেশে ৩য় ধাপের ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী চুড়ান্ত নানা আয়োজনে পালিত হলো ১৫ ফিল্ড রেজিমেন্ট আর্টিলারীর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। মঙ্গোলিয়ার উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের কাছে দারুন জনপ্রিয় অনলাইন শিক্ষা র‍্যাবের হাতে মাদকসহ উলিপুরের সমাজসেবা কর্মকর্তাসহ গ্রেফতার-২ কুড়িগ্রামে মৎস্য বিভাগের মা ইলিশ সংরক্ষণে অভিযান। সিলেটের বর্ষীয়ান আওয়ামী লীগ নেতা আবু নছরের মৃত্যুতে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর শোক ছাতক পৌরসভার নামে টোল আদায় বন্ধে ট্রাক, কাভার্ডভ্যান মালিক ও শ্রমিক সমিতির সভা বড়লেখায় ভোটকেন্দ্র পুনর্বহাল ও নতুন ভোটকেন্দ্র অন্তর্ভুক্ত না করার দাবিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা সিলেটে সংবাদকর্মীকে দফায় দফায় মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর অপচেষ্টা : অভিযোগ সিলেটে অর্থের অভাবে আটক পড়ে আছে ৪২ হাজার ভবনের পরিক্ষা

সাদ্দামের সহযোগিতায় বাছেরুন নেছার মাথা গোঁজার ঠাঁই হলো

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ১২ অক্টোবর, ২০২১
  • ১২৬ বার পড়া হয়েছে

সাদ্দামের সহযোগিতায় বাছেরুন নেছার মাথা গোঁজার ঠাঁই হলো

মোঃ জনি হাসান শ্রীপুর প্রতিনিধি

গাজীপুর জেলার শ্রীপুর উপজেলার ২ নং গাজীপুর ইউনিয়নের নিজমাওনা গ্রামের ৯নং ওয়ার্ডের বাছাতন নেছার পিতা মৃত বাছের আলী মাতা মমিরনের মেয়ে।অন্যের বাড়িতে বসবাস করেন বাছেরুন নেছা। বৃদ্ধ বয়সে দেখার মত কেউ নেই ,স্থানীয় জনপ্রতিনিধির দ্বারে দ্বারে ঘুরেও জোটেনি সরকারি সহায়তা।

বয়স ৭০ বছর পার হলেও বিয়ে হয়নি বাছেরুন নেছার। দারিদ্রতা অসুস্থতা নিয়ে জীবন সায়াহ্নে একাকীত্বতা এখন তার জীবনের একমাত্র সঙ্গী, অবশেষে মাথা গোঁজার ঠাঁই হলো।
ফারহানা ও ফাহিম কম্পিউটার ট্রেনিং ইনস্টিটিউটের প্রতিষ্ঠাতা সাদ্দাম হোসেন অনন্ত অসহায় ঘরহীন বাছেরুন নেছার ঘরটি তৈরি করতে সহযোগিতা করেন।

মা বাবা মারা যাওয়ার পর বর্তমানে পৃথিবীতে আপন বলতে কেউ নেই বাছেরুন নেছার। মানসিকভাবে একটু সমস্যা থাকার কারণে নির্মমতার জীবন-যাপন করছেন ।মাথা গোঁজার ঠাঁই নেই। বৃদ্ধ বয়সে খেয়ে না খেয়ে কোনরকম জীবন যাপন করছেন।
সরজমিনে গিয়ে দেখা যায় ,ছোট্ট একটি ছাপরা ঘরে রোদ বৃষ্টি ঝড়ের সাথে যুদ্ধ করে কোনরকমে জীবনটাকে বাঁচিয়ে রেখেছেন। যেখানে সন্ধ্যা হলেই অন্ধকার নামে আধুনিক সভ্যতার ছোঁয়া মেলেনি ,কোপি বাতির নিয়ন আলোয় ধুকে ধুকে মৃত্যুর দিকে ধাবিত হচ্ছে বাছেরুন নেছা।
এমন তথ্য গণমাধ্যমে প্রকাশ হলে সাদ্দাম হোসেন অনন্ত খোজঁ নিয়ে টিনসেট ঘর, পাকা মেঝে ,ঘরের আসবাবপত্রসহ খাবারের জন্য নিত্য প্রয়োজনীয় চাল ডাল সহ এক মাসের খাবারের ব্যবস্থা করেন।
এ বিষয়ে সাদ্দাম হোসেন অনন্ত বলেন, তথ্য প্রকাশ হওয়ার পর নিজ সামর্থ অনুযায়ী বাছেরুন নেছার ঘরসহ সকল কিছুর দায়িত্বও নিয়েছি।বৃদ্ধ বয়সের সময়টুকু যেন ভালো ভাবে কাটাতে পারে ভবিষ্যতেও খোঁজ নিবো।
অসহায় বাছেরুন নেছার ঘরবাড়ী হওয়ায় এলাকাবাসীর লোকজন সন্তুষ্ট প্রকাশ করে সাদ্দাম হোসেন অনন্তের জন্য দোয়া করেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন

আরো লেখাসমূহ

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত